Something I Read

Sharing is caring
bengali-cinema

বাংলা সিনেমা এবং গান্ডুরা

বাংলা সিনেমার বাজার এই সময় বেশ ভালোই যাচ্ছে। আর যেসব সিনেমার কোনো মাথামুণ্ডু নেই সেগুলো তো রমরমিয়ে চলছে।আমি আর্ট এবং কমারসিয়াল ছবি বলতে কিছু বুঝিনা।আমার কাছে ভালো সিনেমার ভাষা একটাই,যেটা আমার মন ছুঁয়ে যাবে। তবে হ্যাঁ, সেটা অবশ্যই অরিজিনাল কন্টেন্ট হতে হবে। এবার আসি আমার প্রধান বক্তব্য তে। প্রথমে আসি বক্স অফিসের হিসাবে। আমার মাঝে মাঝে মনে হয় কেন অপুর পাঁচালি, অন্তহীন এর মত ছবি ব্লকবাস্টার হয়নি? আর কেন পাগলু, আওয়ারা-র মতো ছবি সুপার ডুপার হিট হয়েছে?উত্তর একটাই, ম্যাক্সিমাম দর্শকই হলো গান্ডু। দর্শক যদি প্রতিদিনের কলকাতার চেয়ে সুইজারল্যান্ডে পোঁদ দুলিয়ে নাচা দেখতে পছন্দ করে তাহলে কিকরে ওই ছবিগুলো বক্স অফিসে সাফল্য পাবে?এবার আসি কন্টেন্ট এর প্রসঙ্গে।

এটা এখন সবাই জানে যে অধিকাংশ বাংলা ছবিই অন্য ভাষার ছবি থেকে টুকে বানান হয়। আর আমরা, অর্থাৎ গান্ডুরা সেগুলোই হলে দেখতে যাই আর সেগুলোকে সুপার হিট বানাই। এভাবেই ব্যবসা চলছে বাংলা ছবি নিয়ে। এখন অরিজিনাল কন্টেনটের সংখ্যা খুবই কম। আর যেগুলো বেরোয় সেগুলো খুব বেশিদিন হলে টেকেনা। আমরা গান্ডুরা জেনেশুনে বাংলা ইন্ডাস্ট্রি নষ্ট করছি। এখন কয়েকটা জিনিস থাকলেই নায়ক হওয়া যায়। দেখতে ভালো হতে হবে ভাই,হাইট টা একটু বেশী হলে ভালো হওয়ার হ্যাঁ সিক্স প্যাক মাস্ট,নইলে চাপ আছে কিন্তু। আর এক্টিং? ওটা নট নেসেসারি।

এগুলো থাকলেই তুমি নায়ক। তবে হ্যাঁ, বিদেশে গিয়ে এ্যাওয়ার্ড কিন্তু অন্তহীন এর মতো ছবিই আনে। কিন্তু এ্যাওয়ার্ড ই তো সব নয়। ইন্ডাস্ট্রি তে টিকে থাকতে গেলে ছবি থেকে পয়সাও কামাতে হবে বইকি। তাই যতদিন না আমরা অর্থাৎ গান্ডুরা পাগলু ছেড়ে অপুর পাঁচালি কে বেশি প্রাধান্য দেবো, ততদিন এভাবেই অন্যের ছবি টুকে চালাতে থাকবে ডিরেক্টরেরা। আর আমরা দিনে দিনে আরও গান্ডু হতে থাকব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *